শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১০:৪২ অপরাহ্ন

মানব পাচারী ও প্রতারনা অভিযোগে গ্রেফতার ৪

রিপোটারের নাম / ৪২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০২১
add

চাকরির প্রলোভনে বিদেশে লোক পাঠানোর নামে প্রতারণার অভিযোগে মানব পাচারকারী চক্রের দুই সদস্যসহ চারজনকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে, আব্দুল আলীম (৪৫) ও কবির আহম্মেদকে (৫২), সাইফুল ইসলাম (৩৩) ও শাহ আজীজুর রহমান শাকিল (৩১)।

ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর সিআইডি, ঢাকা মেট্রো পশ্চিমের একটি দল শাহজাহানপুর ও রূপগঞ্জ এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করে। মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে সিআইডির (ঢাকা মহানগর) অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক শেখ ওমর ফারুক এ কথা বলেন।

শেখ ওমর ফারুক জানান, একটি আন্তর্জাতিক মানব পাচারকারী চক্রের বাংলাদেশি সদস্যরা বিভিন্ন দেশে পাঠানোর কথা বলে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে লোক সংগ্রহ করছে। এই চক্রের মূলহোতা পর্তুগালে অবস্থান করে ভুয়া কাগজপত্র পাঠায়। চক্রটি জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর অনুমোদন ছাড়া চাকরির ভিসায় চেক রিপাবলিকসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে পাঠানোর কথা বলে লোকজনকে প্রথমে ভারতে নিয়ে যায়।

তারপর তাদের পাসপোর্ট, ডলার ও রুপি নিয়ে যায়। চক্রের ভারতীয় সদস্যরা ভিসা ইন্টারভিউয়ের বিভিন্ন তারিখের কথা বলে তাদেরকে ঘোরাতে থাকে। ভুক্তভোগীরা প্রতারিত হচ্ছেন বুঝতে পেরে চেক রিপাবলিক দূতাবাসে যোগাযোগ করে যখন জানতে পারেন কোনো ভিসা দেয়া হচ্ছে না।

তখন তারা দেশে ফিরে আসেন। এরপরই ভুক্তোভোগীদের অভিযোগে প্রেক্ষিতে সোমবার শাহজাহানপুর এলাকা থেকেআব্দুল আলীম ও কবিরকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি জানান, গ্রেফতারকৃতরা একটি সংঘবদ্ধ মানব পাচারকারী দলের সক্রিয় সদস্য। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে শাহজাহানপুর থানায় মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে মামলা হয়েছে।

দুই প্রতারক গ্রেফতার ॥ সমবায় সমিতির নামে নিম্ন আয়ের মানুষের টাকা আত্মসাৎ করা দুই প্রতারককে গ্রেফতার করেছে সিআইডি। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে, সাইফুল ইসলাম (৩৩) এবং শাহ আজীজুর রহমান শাকিল (৩১)। বিভিন্ন জনের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে সিআইডি, ঢাকা মেট্রো পশ্চিমের একটি দল নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থেকে তাদের গ্রেফতার করে। সংবাদ সম্মেলনে সিআইডির (ঢাকা মহানগর) অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক শেখ ওমর ফারুক জানান, রূপগঞ্জ এলাকায় ‘রূপসী বাংলা শ্রমজীবি সমবায় সমিতি লিঃ’ নামে সমিতি চালু করে প্রতারকরা নিম্ন আয়ের লোকজনকে বেশি মুনাফার লোভ দেখিয়ে বিপুল টাকা আত্মসাৎ করেছে।

চক্রটি মানষের বিশ্বস্ততা অর্জন করার জন্য প্রথমে কয়েকজনকে মুনাফাও দিয়েছে। পরবর্তীতে আমানত সংগ্রহের পরিমাণ অনেক বেড়ে গেলে তা আত্মসাৎ করার উদ্দেশ্যে পলাতক ছিল। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে রূপগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ