শুক্রবার, ০২ অক্টোবর ২০২০, ০৪:৩১ পূর্বাহ্ন
add

প্রাসাদ রাজনীতির ষড়যন্ত্রে ঘর ভেঙ্গেছে, এখন চলছে এরিকের সম্পদ লুটপাটের ষড়যন্ত্র: বিদিশা

রিপোটারের নাম / ৫৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : সোমবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০
add

প্রাসাদ রাজনীতির কারণে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সাথে বৈবাহিক বিচ্ছেদ হয়েছিল দাবি করে এরশাদের সাবেক স্ত্রী বিদিশা বলেছেন, এরশাদের মৃত্যুর আগেই আমি তবুও ভালো ছিলাম। মৃত্যুর পর আমাদের একমাত্র পুত্র এরিক ও তার সম্পদ লুটপাট করার জন্য এখনও ষড়যন্ত্র অব্যাহত আছে। হুমকি ধামকি চলছে।

সোমবার দুপুরে রংপুরের পল্লী নিবাসে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কবর জিয়ারতের আগে বিদিশা এরশাদ এক প্রেস ব্রিফিং করে একথা বলেন।

এসময় পুত্র শাহাতা জারাব এরিখ এরশাদ ছাড়াও এরশাদ গঠিত জোট বিএনএ-এর সভাপতি সেকেন্দার আলী মনি, মুখপাত্র শেখ মোস্তাফিজার রহমান, মহাসচিব মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, সমন্বয়কারী মো. আক্তার হোসেন, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ট্রাস্টের পরিচালক ও এরিখ এরশাদের লিগাল অ্যাডভাইজার অ্যাডভোকেট কাজী রুবায়েত হাসান, এন মোহাম্মদ এরশাদ ট্রাস্টের প্রেস সচিব ও বিদিশা এরশাদের  একান্ত সহকারী সচিব সায়েম সাকলায়েন রাজিব উপস্থিত ছিলেন।

প্রেস ব্রিফিংয়ে বিদিশা বলেন, যারা একসময়ে এরিকের মাধ্যমে নমিনেশন নিয়েছে। মন্ত্রী এমপি হয়েছে। ফল-ফ্রুটস পাঠিয়েছে। তারা এখন তার কোন খোঁজ রাখেনি। এরশাদের মৃত্যুর আগেও আমাদের নিয়ে ষড়যন্ত্র হয়েছে। এখনও হচ্ছে। জিডি হামলা-মামলা, হুমকি-ধামকি সব কিছু আমাকে সহ্য করতে হচ্ছে। এখন চলছে কীভাবে এরিকের সম্পদ লুটপাট করা যায়। আমি এরশাদের সম্পদের লোভে রংপুর আসিনি। তার কবর জিয়ারতের মাধ্যমে তার দোয়া নিয়ে আমি রাজনীতির মাঠে সক্রিয় হতে চাই। এরিক ও তার সম্পদকে রংপুরবাসীর হাতে তুলে দিলাম, আপনারা দেখে রাখবেন।

পরে তিনি পুত্র এরিককে নিয়ে এরশাদের কবর জিয়ারত ও মোনাজাতে অংশ নেন। ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান কবরে। এর আগে বেলা ১২ টায় সৈয়দপুর বিমানবন্দর থেকে এসে সোজা পল্লী নিবাসে যান। সেখানে এরিক এরশাদের ছবিতে চুমু খান।সূত্র খবরঃ যমুনা নিউজ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৩৪,৪১২,৭১৯
সুস্থ
২৫,৬০০,৭৫০
মৃত্যু
১,০২২,৮৩৩