রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৮:২৫ অপরাহ্ন
add

টাঙ্গুয়ার হাওরের জীব ও বৈচিত্র্য মৎস নিধন কারীর গ্যাং লিডার

রিপোটারের নাম / ৪১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৬ নভেম্বর, ২০২০
add

তাহিরপুর প্রতিনিধিঃসুনামগঞ্জ জেলা বৃহত্তম মা মাছের অভয়ারণ্য প্রকৃতির লীলাভূমি দেশের দ্বিতীয় রামসার সাইট টাঙ্গুয়ার হাওরের জীববৈচিত্র্য ধ্বংসের অন্যতম হাতিয়ার ও অবৈধ মৎস্য নিধনকারীর নেপথ্যের কারিগর শাহ আলমগীর। বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে টাঙ্গুয়ার হাওরে অবাধেই চালিয়ে যাচ্ছে মৎস্য নিধন ও জীববৈচিত্র্যের ধ্বংস লীলা,কখনো টাঙ্গুয়ার হাওরের দায়িত্বরত বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এর নৌকার মাঝি মনির এর সঙ্গী হয়ে তার নিয়োগপ্রাপ্ত জেলেদের দ্বারা, কখনো বা অবৈধ জেলেদের সংঘবদ্ধ করে হাওরে অবৈধ ভাবে মৎস্য নিধন করে যাচ্ছে নির্বিঘ্নে ।
শাহ আলমগীর শুধু মৎস্য নিধনেই সীমাবদ্ধ নয় বিগত বছরে অর্থের বিনিময়ে বহিরাগত জেলার হইতে গরু মহিষ এনে টাঙ্গুয়ার হাওরের সংরক্ষিত সবুজাভ বনভূমি কে গরু মহিষের চারণভূমিতে পরিনত করে,হাতিয়ে নেয় লক্ষ লক্ষ টাকা।এতে হাওরে কান্দা গুলোতে প্রকৃতি ভাবে জেগে উঠা, বিভিন্ন প্রজাতির গাছ, ও বিভিন্ন প্রজাতির কচ্ছপ ও পাখির ডিম মহিষের পায়ের তলায় পিষ্ট হচ্ছে। এছাড়াও টাঙ্গুয়ার হাওরে যে কোন অপকর্মের নেতৃত্ব দেয় সে।
তার বিরুদ্ধে মা মাছ নিধন করার জন্য টাঙ্গুয়ার হাওরের বাঁধ কাটার অপরাধে একটি মামলা রয়েছে,তার বিরুদ্ধে টাঙ্গুয়া হাওরের বিভিন্ন ছোটকাট বিল পাম্প মেশিন দিয়ে বিল সেচ দিয়ে পানি শুকিয়ে মাছ ধরার অভিযোগ রয়েছে অনেক।এছাড়াও বিভিন্ন অপরাধে একাধিক মামলাও রয়েছে তার বিরুদ্ধে । শাহ আলমগীর কখনো টাঙ্গুয়ার হাওরের দায়িত্বরত বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এর নৌকার মাঝি মনির মিয়ার সঙ্গী হয়ে,কখনো বা প্রশাসনের সোর্স পরিচয়ে,কখনো বা অবৈধ মৎস্য আহরণকারীদের গ্যাং লিডার হয়ে দিনের পর দিন অবৈধ ভাবে মৎস্য নিধন সহ হাওরের জীববৈচিত্র্য ধ্বংসের অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে যেন দেখার কেউ নেই।

সম্প্রতি টাঙ্গুয়ার হাওরের কমিউনিটি গার্ডের সদস্যরা টাঙ্গুয়ার হাওরে অবৈধ মৎস্য আহরণের সময় অবৈধ জেলেদের নিষিদ্ধ কোনাজাল আটক করতে গিয়ে,এই অবৈধ মৎস্য আহরণকারীদের নেপথ্যের কারিগর শাহ আলমগীর গংদের হামলা ও হুমকির শিকার হয়। যাহার প্রমাণাদি সংরক্ষিত রয়েছে।

জানাযায় টাঙ্গুয়ার হাওর এলাকার সংঘবদ্ধ জেলেদের গ্যাং লিডার অবৈধ মৎস্য আহরণকারীদের নেপথ্যের কারিগর শাহ আলমগীর,তাহিরপুর উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের,টাঙ্গুয়ার হাওর সংলগ্ন মন্দিয়াতা গ্রামের মোঃসাইকুল ইসলামের ছেলে।

বিষয়ে স্থানীয় নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি বলেন শাহ আলমগীর হল টাঙ্গুয়ার হাওরে অবৈধ কর্মকাণ্ডের মূল হুদা,সে বিভিন্ন কৌশলে হাওরে তার অবৈধ কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে,টেকেরঘাট ম্যাজিস্ট্রেট এর মাঝি মনির এর সাথে সমন্বয় করে।

এ ব্যাপারে টাংগুয়ার হাওর গ্রাম উন্নয়ন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মনির মিয়া তালুকদার বলেন ,একটু পরে বলছি।

টাঙ্গুয়ার হাওরের দায়িত্বরত বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট স্বজল মোল্লা গনমাধ্যমকে বলেন এ ব্যাপারে ইউএনও স্যার বলেছেন তবে নাম বলেছেন ঠিক বলতে পারছিনা, এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পদ্মাসন সিংহ বলেন বিষয়টি আমি অবগত নয়,উনি বলেন বিষয়টি বর্তমানে টাঙ্গুয়ার দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কে অবগত করেন,বিষয়টি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৬২,৭২৮,০৪৮
সুস্থ
৪৩,৩৪৭,৬২২
মৃত্যু
১,৪৬০,৯৫৯