মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৬:১৪ পূর্বাহ্ন

ক্যাম্পাস থিয়েটার আন্দোলন, বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় পরিষদ গঠিত

রিপোটারের নাম / ৭২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শনিবার, ২০ মার্চ, ২০২১
add

মোঃ হোসাইন ইসলামঃ ক্যাম্পাস থিয়েটার ভিত্তিক সংগঠন “ক্যাম্পাস থিয়েটার আন্দোলন, বাংলাদেশ” এর তিন বছর মেয়াদী কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদ গঠন করা হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১১ ঘটিকায় রাজধানীর মিরপুরে ফ্রেন্ডস সেন্টারে সংগঠনটির বার্ষিক সাধারণ সভা ও সাংগঠনিক কর্মশালার-২০২১ অনুষ্ঠিত হয়। সভার উদ্ভোধন করেন সংগঠনটির উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ও সরকারি বাঙলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. ফেরদৌসী খান। কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদে আগামী তিন বছরের জন্য সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন কামাল উদ্দিন শামীম এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা হাবিব তাড়াশী। এছাড়া সভাপতি মন্ডলীর সদস্য হিসেবে রয়েছেন সুমন্ত কুমার সাহা (ঢাকা), সৈয়দ আয়াজ মাবুদ (চট্রগ্রাম), ড. মাহফুজা হিলালী (রাজশাহী), তাপস কুমার কুন্ডু (খুলনা), জহিরুল মিঠু (সিলেট), শাহরিয়ার আল মামুন (বরিশাল), হুমায়রা মোর্শেদা আখতার (রংপুর), মো: আল জাবির (ময়মনসিংহ)। ৪৩ সদস্য বিশিষ্ট কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের অন্যান্য সদস্যরা হলেন দেশের বিভিন্ন ক্যাম্পাস থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাতা সদস্যবৃন্দ। আন্দোলনের মাধ্যমে বাংলাদেশের কিশোর ও তরুণ শিক্ষার্থীদের সৃজনশীল, মানবিক, সংস্কৃতিমনস্ক ও দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে সহ-শিক্ষা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে “ক্যাম্পাস থিয়েটার আন্দোলন, বাংলাদেশ” ২০১৫ সালের ২৫ নভেম্বর যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে সারাদেশের ৬৪ টি ক্যাম্পাস থিয়েটারের মাধ্যমে এই সংগঠনটি তার কার্যক্রম পরিচালনা করছে। আগামী তিন বছরের মধ্যে ৫০০ টি ক্যাম্পাসে কার্যক্রম শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে। ইতিমধ্যে ২০১৮ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে প্রথম ক্যাম্পাস থিয়েটার উৎসব এবং ২০২০ সালে দ্বিতীয় জাতীয় ক্যাম্পাস থিয়েটার উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। মুজিব শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ন জয়ন্তী উপলক্ষে আগামী জুনে সারাদেশের বাছাইকৃত ৫০ টি ক্যাম্পাস থিয়েটার নিয়ে “তৃতীয় জাতীয় ক্যাম্পাস থিয়েটার উৎসব-২০২১” আয়োজনের প্রস্তুতি চলছে। বাংলাদেশের যে সমস্ত প্রতিষ্ঠানে উচ্চ মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেনি হতে স্নাতকোত্তর শ্রেনি বা সমমান স্তর পর্যন্ত শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হয় সেখানে এ সংগঠনের কার্যক্রম পরিচালিত হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের নিয়ে সৃজনশীল ও মানবিক সমাজ গড়ার প্রত্যয়ে বাঙালির সংস্কৃতি ও নাট্য-শিল্প বিষয়ে চর্চা; নতুন সংস্কৃতি কর্মী, অভিনেতা, নাট্যকার ও নির্দেশক তৈরির মাধ্যমে জাতীয় সংস্কৃতি অঙ্গনকে সমৃদ্ধ করণে সহায়তা; নাট্যবিষয়ে মৌলিক গবেষণা এবং গবেষণালব্ধ তথ্যের প্রতিষ্ঠা ও প্রচার; নাট্য-সাহিত্য ও শিল্পের ক্রমবিবর্তনের তথ্য ও বিবরণ সংকলন এবং এ বিষয়ে উৎসাহ প্রদান করা; শিক্ষার্থী এবং সাধারণের মধ্যে নবধারার নাট্য-শিল্পের প্রসার এবং বাঙালি সংস্কৃতি, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, জাতীয়তাবোধ ও মননশীলতার উৎকর্ষ সাধন ও গবেষণার লক্ষ্যে এটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। উল্লেখ্য যে, সৃজনশীল সংস্কৃতি চর্চা ও নাট্য আন্দোলনের প্রয়াসে সংগঠনটি প্রতিষ্ঠান ইউনিট, জেলা সংসদ ও কেন্দ্রীয় পরিষদ এই তিনটি স্তরের মাধ্যমে পরিচালিত হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ